• সম্পদ হতে পারে দ্রব্য বিশেষ (যেমন একটি গাড়ি বা একটি বাড়ি) অথবা অদ্রব্য বিশেষ (যেমন নাম ও সুনাম) অথবা ব্যক্তিগত (যেমন একজনের চোখ, একজনের অঙ্গ-প্রতঙ্গ) I
  • ঝুঁকি : সম্পত্তির ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনাকে বলা হয় ঝুঁকি I
  • দুর্যোগ : ঝুঁকির ঘটনার কারণকে বলা হয় দুর্যোগ I
  • ঝুঁকির বোঝা খরচ, ক্ষতি ও অক্ষমতাকে বোঝায় যা একটি প্রদত্ত ক্ষতি পরিস্থিতি/ঘটনায় উন্মুক্ত হওয়ার ফলে একজনকে সহ্য করতে হয় I
  • ঝুঁকির প্রাথমিক বোঝা সেই ক্ষতি নিয়ে গঠিত যা আসলে ভোগ করে বাড়ির লোকেরা (এবং ব্যবসা ইউনিট), শুদ্ধ ঝুঁকি ঘটনার একটি ফলাফল হিসেবে এই ক্ষতি প্রায়ই প্রত্যক্ষ ও পরিমাপযোগ্য এবং সহজেই বিমা দ্বারা ক্ষতিপূরণ করতে পারা যায় I একটি কারখানায় অগ্নিকান্ড ও পণ্যের ক্ষতির মূল্য অনুমান করা যেতে পারে I
  • ঝুঁকির গৌণ বোঝা খরচ ও প্রয়াস নিয়ে গঠিত যা একজনকে বহন করতে হয় শুধুমাত্র ঘটনা থেকে যেটাতে একজন ক্ষতি পরিস্থিতিতে উম্মুক্ত থাকে I এমনকি যদি বলা ঘটনা না ঘটে, এই বোঝা তখনও বহন করতে হবে I
  • ভবিষ্যতের সম্ভাব্য ক্ষতির জন্য একটি সংরক্ষিত তহবিল একপাশে সরিয়ে রাখাকে বলে ঝুঁকির গৌণ বোঝা I বিমা হলো ঝুঁকি হস্তান্তরের একটি পদ্ধতি I
  • ঝুঁকির গৌণ বোঝা কিভাবে ব্যবস্থা করা হয় : এইরকম একটি পরিনাম পূরণের জন্য একটি সংরক্ষিত তহবিল একপাশে সরিয়ে রাখা হয় I
  • বিমা কোম্পানির কাছে ঝুঁকির হস্তান্তর : বিমা হলো একমাত্র উপায় যার দ্বারা ব্যক্তিরা তাদের ঝুকির ব্যবস্থাপনা করতে পারে I
  • ঝুঁকির পরিহার : একজন একটি দুর্ঘটনা ঘটার ভয়ে বাড়ির বাইরে বেরোনোর ঝুঁকি নেবে না বা যখন বিদেশে থাকে অসুস্থ হবার ভয়ে ভ্রমন করতে পারে না I
  • ঝুঁকি ধারণ : একজন ঝুঁকি প্রভাব পরিচালনা করার চেষ্টা করে এবং ঝুঁকি ও তার প্রভাব সহ্য করার সিদ্ধান্ত নেই নিজেই I এটি আত্ম বিমা হিসেবে পরিচিত I
  • পদক্ষেপ সংগঠন সম্ভবনা কমানো ‘ক্ষতি প্রতিরোধ’ হিসেবে পরিচিত I ক্ষতির মাত্র কমাতে ব্যবস্থাকে ‘ক্ষতি নিরসন’ বলা হয় I
  • স্ব অর্থায়নের মাধ্যমে ঝুঁকি ধারণ যেমন ঘটে সেরকম কোনো ক্ষতির জন্য স্ব পরিশোধ করতে হয় I
  • ঝুঁকি হস্তান্তর ঝুঁকি ধরণের একটি বিকল্প I ঝুঁকি হস্তান্তর অন্য পক্ষকে ক্ষতির জন্য দায়িত্ব হস্তান্তর করে থাকে I
  • বিমা বনাম নিশ্চিতকরণ : বিমা একটি ঘূতনার সুরক্ষা বোঝায় যেটা ঘটতে পারে যেখানে নিশ্চিতকরণ একটি ঘটনার সুরক্ষা বোঝায় যা ঘটবে I
  • পুলিং হলো বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে বহুসংখ্যক ব্যক্তির দান (যাকে বলে প্রিমিয়াম) সংগ্রহ করা I এইসব ব্যক্তিদের সম্পত্তি একই রকম যার ক্ষতির সম্ভবনাও একই I তহবিলের এই পুল ব্যবহার করা হয় কিছু মানুষের ক্ষতিপূরণ দিতে যারা দুর্যোগের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ I
  • বিমাকে এমন একটি পদ্ধতি বলা যেতে পারে যার দ্বারা অল্প কিছু লোকের ক্ষতি যারা দুর্ভাগ্যবশত এইধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে, তারা ভাগ করে নেই যারা একই রকম অনিশ্চিত ঘটনাবলী/অবস্থার সম্মুখীন হতে পারত I বিমা হলো একটি পদ্ধতি যা কয়েকজনের ক্ষতি অনেকে মিলে ভাগ করে নেওয়া I
  • একটি গ্রামে ৪০০ টি বাড়ি আছে, যার প্রত্যেকটির মূল্য ২০০০০ টাকা I
  • প্রত্যেক গ্রীষ্মে সেখানে আগুন লাগে I গড়ে ৪ টি বাড়ি আগুনে পুড়ে যায় I
  • এই অগুনের দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভবনা বাড়ির মূল্যের ১% I
  • আগুনে মোট ক্ষতির পরিমান ৮০০০০ টাকা I
  • সব বাড়ির মালিকরা এক হয়ে ২০০ টাকা হিসেবে জমা করলো I মোট ৮০০০০ টাকার তহবিল গঠিত হল এই ৮০০০০ টাকা ওই ৪ জন বাড়ির মালিককে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য যথেষ্ট যাদের বাড়ির মূল্য ২০০০০ টাকা করে I
  • সম্ভবনা ও ক্ষতির পরিমানের বৃদ্ধির সাথে বিমার খরচ সমহারে বৃদ্ধি পায় I
  • বিমা নিয়ন্ত্রক ও উন্নয়ন আধিকারিক হলো ভারতের বিমা শিল্পের নিয়ন্ত্রক I
  • ঝুঁকি গ্রহনের আগে, রেটিং এর উদ্দেশ্যে ঝুঁকি নির্ধারণ করতে বিমাপ্রদেত্তা সম্পত্তির যাচাই ও অনুসন্ধান করবে I
Related Training Material 

একটি চুক্তি হলো আইন সম্মত ভাবে দুই পক্ষের সম্মতি I বিমা চুক্তি সহ ভারতের সমস্ত চুক্তি ভারতীয় চুক্তি আইন, ১৮৭২ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত I

একটি বৈধ্য চুক্তির উপাদানগুলি হলো :

প্রস্তাব ও স্বীকৃতিঅবশ্যই চুক্তিটির ভিত্তি হবে একজন ব্যক্তি অন্যজনকে আইনত প্রস্তাব দেবে এবং পরে তা আইনত ভাবে স্বীকার করবে I
বিবেচনাবিবেচনার অর্থ হলো ‘কিছু ফেরৎ’ I সেটা হতে পারে নগদ অর্থ, দয়া, কোনো কাজ বা কাজে বিরত থাকা I
চুক্তি করার ক্ষমতাউভয় পক্ষকে চুক্তিতে প্রবেশ করার জন্য প্রাপ্ত বয়স্ক, সুস্থ মস্তিষ্ক সম্পন্ন ও আইনতভাবে উপযুক্ত হতে হবে I
উদ্দেশ্যের বৈধতাচুক্তির উদ্দেশ্য অবশ্যই বেআইনি বা অবৈধ্য হবে না I
উভয় পক্ষের ঐক্যমতচুক্তিতে উভয় পক্ষকে একই ঐক্যমত পোষণ করতে হয় I
অবাধ সম্মতিচুক্তি শুরুর সময় অসামাজিক উপায়ে দমন বা অনুচিত প্রভাব ছাড়া উভয় পক্ষের অবাধ সম্মতি থাকতে হয় I
  • দমন এর অর্থ হলো অপরাধমূলক উপায়ে বাধ্য করা I
  • অনুচিত প্রভাব – একজন ব্যক্তি যখন অন্য আরেকজনের ইচ্ছা নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয় সে অযৌক্তিক সুবিধা প্রাপ্তের জন্য তার অবস্থান ব্যবহার করে I
  • বিমা চুক্তি – বিশেষ বৈশিষ্ট্য
  • ভারতীয় চুক্তি আইন ১৮৭২ অনুযায়ী জীবন বিমা হলো একটি চুক্তি I চুক্তির অত্যাবশ্যক উপাদানগুলি ছাড়াও বিমা চুক্তির আরো দুটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য আছে I
  • চরম বিশাশ্বাসের নীতি – প্রস্তাবকের অত্যাবশ্যকীয় দায়িত্ব হলো তার কাছে যা তথ্য আছে তা পুরোপুরি ও সঠিকভাবে নিজে থেকেই জানানো, তা জানতে চায় বা নাই চায় I
উদাহরণ : ডেভিড একটি জীবন বিমা পলিসির জন্য একটি প্রস্তাব তৈরী করে I পলিসির সময় আবেদনের সময় ডেভিড ডায়াবেটিসে ভুগছিল এবং চিকিৎসাধীন ছিল I কিন্তু ডেভিড বিমা কোম্পানির কাছে এই সত্যটি প্রকাশ করেনি I ডেভিড ত্রিশের কতে ছিল তাই জীবন বিমা কোম্পানি দেভিদকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার কথা না বলে পলিসিটি শুরু করে দেয় I কয়েক বছর পরে তার স্বাথ্য খারাপ হয় এবং তাকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় I ডেভিড রগ্যলাভ করে না এবং কিছু দিনের মধ্যে মারা যায় I জীবন বিমা কোম্পানির কাছে একটি দাবি করা হলো I অত:পর বিমা চুক্তিটি নাকচ ও বাতিল করা হয় এবং দাবি প্রত্যাখান করা হয়েছিল I
Related Training Material 

 

অত্যাবশ্যক তথ্য বলতে বোঝায় একটি সত্য যা বিমা চুক্তির দায়্গ্রহন কারীর সিদ্ধান্তকে প্রভাবিত করতে পারে যে তিনি ঝুঁকি গ্রহণ করবেন কিনা এবং সেটি হলেও প্রিমিয়ামের হার ও শর্তাবলী I

  • অত্যাবশ্যক তথ্যের উদাহরণ : নিজের মেডিকেল ইতিহাস, বংশগত অসুস্থতার পারিবারিক ইতিহাস, ধুমপান ও মদ্যপানের অভ্যাস, কাজের অনুপস্থিতি, বয়স, শখ, আর্থিক তথ্য যেমন প্রস্তাবকের আয়, বর্তমান জীবন বিমা পলিসি, পেশা ইত্যাদি I কোনো এক পক্ষ চরম বিশ্বাসের নীতি না মানলে অন্যজন চুক্তি বাতিল করতে পারে I
  • প্রকাশ করার দায়িত্ব : জীবন বিমা চুক্তির ক্ষেত্রে, প্রকাশ করার দায়িত্ব সমঝোতার সব সময় বর্তমান থাকবে যতক্ষণ না পর্যন্ত প্রস্তাব পত্র গৃহিত হয় এবং পলিসি প্রদান করা হয় I
  • যদি পলিসিটি তামাদি অবস্থায় থাকে এবং পলিসিগ্রাহক তা পুনরুজ্জীবিত করতে চায়, এই পুনরুজ্জীবনের সময়, তাকে সব তথ্য প্রকাশ করতে হবে যেটা অত্যাবশ্যক ও আনুসঙ্গিক, কারণ এটি একটি নুতন চুক্তি I
  • একবার পলিসি গৃহীত হলে, তাপর পলিসি মেয়াদের মধ্যে কোনো পরিবর্তন হলে তা আর জানানোর প্রয়োজন নেই I
  • অপ্রকাশ উদ্ভুত হতে পারে যখন বীমাকৃত অত্যাবশ্যক তথ্য সম্পর্কে নীরব থাকে কারণ বিমাকারী কোনো নির্দিষ্ট তদন্ত উত্থাপিত করেনি I এটি বিমাপ্রদেত্তার দ্বারা উত্থাপিত প্রশ্নের অসরল উত্তরের মাধ্যমে উদ্ভুত হতে পারে I
  • মিথ্যা বর্ণনা দুধরনের হতে পারে : সরল মিথ্যা বর্ণনা হলো ভুল বিবৃতি, যেগুলি কোনো প্রতারণাপূর্ণ উদ্দেশ্য ছাড়াই হয়ে থাকে I প্রতারণা পূর্ণ মিথ্যা বর্ণনা বলতে বোঝায় মিথ্যা বিবৃতি যেগুলি বিমাপ্রদেত্তাকে প্রতারণা করার জন্য ইচ্ছাকৃতভাবে অভিপ্রায় করা হয় বা সত্যের যথোচিত প্রসঙ্গ ছাড়াই বেপরোয়া ভাবে হয়ে থাকে I
  • বিমাযোগ্য স্বার্থের নীতি : বিমা চুক্তির ভিত্তি হলো বিমাযোগ্য স্বার্থ I
  • বিমাযোগ্য স্বার্থের অস্তিত্ব প্রত্যেক বিমা চুক্তির অপরিহার্য উপাদান এবং বিমার জন্য আইনি পূর্বশর্ত হিসেবে বিবেচিত হয় I
  • বিমা বিষয় সম্পত্তি যার বিরুদ্ধে বিমা করা হচ্ছে তার সাথে সম্পর্কিত, যার একটি নিজস্ব স্বকীয় মান আছে I
  • একটি বিমা চুক্তির বিষয় বস্তু হলো সেই সম্পত্তিতে বিমাকৃতের আর্থিক আগ্রহ I এটা শুধুমাত্র হয় যখন বিমাকৃতের সম্পত্তির আগ্রহ আছে যেখানে তার বিমা করার আইনি অধিকার আছে I কঠিন অর্থে বিমা পলিসি শুধুমাত্র সম্পত্তির সুরক্ষা দেয় না কিন্তু বিমাকৃতের সম্পত্তির উপর আর্থিক সুদও পূরণ করে I
  • জুয়ায় একজন জিততেও পারেন আবার হারতেও পারেন, কিন্তু অগ্নিকান্ডের ঘটনায় একজনের একটিমাত্র ফল হবে – বাড়ির মালিকের ক্ষতি I
  • সাধারণ নিয়ম অনুযায়ী বিমাযোগ্য স্বার্থ্য থাকে : নিজের জীবন, স্বামী-স্ত্রী, শিশু এবং সম্পত্তির মধ্যে I
  • জীবন বিমার ক্ষেত্রে, বিমাযোগ্য স্বার্থ্য বর্তমান থাকতে হয় পলিসি নেওয়ার সময় I
  • সাধারণ বিমার ক্ষেত্রে, বিমাযোগ্য স্বার্থ্য বর্তমান থাকতে হয় পলিসি নেওয়া ও দাবি উভয় সময় I
  • চুক্তির ভিত্তি অনুযায়ী, এটি আরো কিছু মানুষের মধ্যে বর্তমান থাকে : নিয়োগকারী-কর্মচারী, দেনাদার-পাওনাদার, অংশীদার এবং জামিনদার I
  • সম্ভাব্য কারণ এর সংজ্ঞা হলো সক্রিয় ও কার্যকর কারণ যা ক্রমাগত ঘটনা তৈরী করা, কোনো শক্তির হস্তক্ষেপ ছাড়াই শুরু করা এবং একটি স্বতন্ত্র উৎস থেকে সক্রিয়ভাবে কাজ করা I
  • জীবন বিমায় সম্ভাব্য কারণের প্রয়োগ :
  • যেহেতু জীবনবীমা মৃত্যুর সুবিধা প্রদান করে, মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে বিবেচনা না করে, সম্ভাব্য কারণ নীতি প্রযোজ্য হবে না I দুর্ঘটনার সুবিধাসহ জীবন বিমার ক্ষেত্রে, মৃত্যুর কারণ জানা প্রয়োজনীয় – মৃত্যু দুর্ঘটনার কারণে হয়েছে কিনা I এক্ষেত্রে সম্ভাব্য কারণের নীতি প্রযোজ্য হবে I
  • ক্ষতিপূরণ ও জীবন বিমা : জীবন বিমা ‘ আশ্বাসিত মূল্যের ‘ নীতিতে কাজ করে, ক্ষতিপূরণের নীতিতে নয় I এটি শুধুমাত্র সাধারণ বিমায় প্রযোজ্য হয় I