• ঝুঁকি নিরীক্ষক ঝুঁকি নির্ধারণ করে এবং ঝুঁকির মাত্রার ওপর নির্ভর করে প্রিমিয়াম নির্ণয় করে থাকে I এই অধ্যায়টি করা হলো :
    • বিপরীত নির্বাচন বা বিমাপ্রদেত্তার বিরুদ্ধে নির্বাচন প্রতিরোধ
    • ঝুঁকির শ্রেণীবিভাগ ও ঝুঁকির মধ্যে সমতা বিধান করা
  • একজন ঝুঁকি নির্ধারণকারী প্রতিটি বিমাকৃতের জন্য ঝুঁকি নির্ধারণের পদ্ধতিটি প্রয়োগ করে I তারপর পলিসির অনুমোদনের সিদ্ধান্ত নেন I
  • ঝুঁকি নির্ধারনকারীর ভুমিকা : ঝুঁকি নির্ধারনকারী ঝুঁকি নির্ধারণ করে এবং নির্ধারিত ঝুঁকির ওপর নির্ভর করে প্রিমিয়াম নির্ণয় করে থাকে I
  • ঝুঁকি নির্ধারণ করা নিম্নলিখিত বিষয়ের ভিত্তিতে :
    • শারীরিক বিপদ :
      • বয়স
      • লিঙ্গ
      • গঠন
      • শারীরিক অবস্থা
      • শারীরিক প্রতিবন্ধকতা
      • ব্যক্তিগত ইতিহাস
    • মননের বিপদ :
      • বীমাকৃত ব্যক্তির মনোভাব
    • পেশাগত বিপদ :
      • কাজের প্রকৃতি
      • জায়গা এবং কাজের অবস্থা
    • বিমা পলিসি ঝুঁকি নির্ধারনকারীর সিদ্ধান্ত ব্যতীত প্রদান করা যায় না I এর কারণ হলো বিমা ” শেয়ারিং ” এবং ” ঝুঁকির ভাগাভাগি ” -এই নীতির উপর কাজ করে I
    • যদি ঝুঁকি নির্ধারণে ভুল হয় , প্রিমিয়াম ধার্য করাও ঠিক হবে না I কম প্রিমিয়াম ফান্ডের প্রতুলতায় প্রভাব ফেলবে I
    • ফান্ড : জীবন বিমা ব্যবসা থেকে এই , বিনিয়োগ থেকে উপার্জন সহ , যে ফান্ডে ধরে রাখা হয় তাকে বলে জীবনবীমা ফান্ড I
    • ঝুঁকিসহ ইকুইটি
    • ইকুইটি কথাটির অর্থ হলো সেইসব আবেদনকারী যারা একই ধরনের ঝুঁকির মাত্র বহন করে এবং যাদের একই প্রিমিয়াম শ্রেণীতে রাখা হয় I আমরা ইতিমধ্যে দেখিয়েছি প্রিমিয়াম ধার্য করার জন্য জীবন বিমা প্রদেত্তা কিভাবে মর্টালিটি টেবিল ব্যবহার করে I
    • মর্টালিটি টেবিল উপস্থাপিত করে স্ট্যান্ডার্ড জীবন বা গড় ঝুঁকির মর্টালিটির অভিজ্ঞতা I
    • ঝুঁকির শ্রেণীবিভাগ
    • স্বাভাবিক জীবন এটি তাদের নিয়ে গঠিত যারা মৃত্যু-সরনিতে প্রকাশিত স্বাভাবিক মানের জীবনের পরিপেক্ষিতে মৃত্যু প্রত্যাশা করছে I
    • আকাক্ষিত ঝুঁকি এটিতে যাদের প্রত্যাশিত মৃত্যুহার স্বাভাবিক জীবনের থেকে উল্লেখযোগ্য ভাবে কম এবং অত:পর একটি নিম্ন প্রিমিয়াম তাদের ধার্য করা যেতে পারে I
    • নিম্নমানের জীবন এটি যাদের প্রত্যাশিত মৃত্যুহার সাধারণ বা স্বাভাবিক মানের জীবনের চেয়ে বেশি , কিন্তু তাও বিমাযোগ্য হিসেবে গন্য Iতারা বিমার জন্য উচ্চ ( অথবা অতিরিক্ত ) প্রিমিয়ামের সঙ্গে গৃহীত বা নির্দিষ্ট বিষয়ে সীমাবদ্ধ I
    • ক্ষীণতর জীবন এই যার বৈকল্য এবং অপেক্ষিত অতিরিক্ত মৃত্যুহার এতো বেশি যে তার একটি সাশ্রয়ী খরচে বিমা সুরক্ষা দেওয়া যেতে পারে না I

 

  • নির্বাচন পদ্ধতি:বিমা আবেদনকারীর নির্বাচন দুটি পর্যায়ে হয়
    • তৃনমূল পর্যায় – প্রাথমিক পর্যায়
    • ঝুঁকি নির্ধারণ পর্যায় – বিভাগীয় পর্যায়
  • প্রাথমিক ঝুঁকি নির্ধারণ : এটিতে একজন আবেদনকারী বিমা সুরক্ষা পাওয়ার যোগ্য কিনা তার সিদ্ধান্ত নিতে এজেন্ট বা কোম্পানির প্রতিনিধি দ্বারা একত্রিত করা তথ্য অন্তর্ভুক্ত I এজেন্ট প্রাথমিক ঝুঁকি নিরীক্ষক হিসেবে কঠিন ভুমিকা পালন করে I বিমাকৃতের জীবন সম্বন্ধে জানার ব্যাপারে সে সবথেকে ভালো অবস্থায় থাকে I
  • অনেক বিমা কোম্পানির এজেন্ট প্রয়োজন হয় যে একটি বিবৃতি বা গোপন প্রতিবেদন , জানতে চাওয়া নির্দিষ্ট তথ্য , মতামত ও প্রস্তাবিত বিমার জন্য এজেন্ট প্রদত্ত সুপারিশ সম্পূর্ণ করবেন I
  • বিভাগীয় পর্যায়ে ঝুঁকি নিরীক্ষণ
  • ঝুঁকি নির্ধারণের দ্বিতীয় পর্যায় বিভাগ বা অফিসে স্তরে হয়ে থাকে I
  • বিমা কোম্পানির ঝুঁকি নির্ধারণকারী বিভাগীয় স্তরে ঝুঁকি নির্ধারণের দায়িত্ব হাতে নেয় I
  • এইরূপ ঝুঁকি নির্ধারণে জড়িত থাকে অভিজ্ঞ এবং এই কাজের জন্য যোগ্য ব্যক্তিরা I তারা জীবন বিমার জন্য সমস্ত প্রাসঙ্গিক তথ্য বিবেচনা করে প্রস্তাব গ্রহণ করা হবে কিনা বা কি শর্তে তা গ্রহণ করবেন তা স্থির করেন I
  • ঝুঁকি নির্ধারণের দুটি পদ্ধতি আছে :
  • সিদ্ধান্তমূলক পদ্ধতি :এই পদ্ধতি অনুযায়ী বিষয়গত সিদ্ধান্ত ব্যবহার করা হয় , বিশেষ করে যখন কোনো জটিল সিদ্ধান্ত নিতে হয় I
  • সংখ্যাগত পদ্ধতি :এই পদ্ধতিতে দায়্গ্রহনকারীর অধীনে সব নেতিবাচক বা প্রতিকুল কারণের জন্য ইতিবাচক বিচার নির্ধারণ করে I নির্ধারিত মোট সংখা এটিতে কত অতিরিক্ত মর্টালিটি হার ( ই এম আর ) দেওয়া হয়েছে তা নির্ধারণে সিদ্ধান্ত নেবে I বেশি ই এম আর বেশি নিম্নমানের জীবন I যদি ই এম আর খুব বেশি হয় , তাহলে বিমা প্রত্যাহার করা হতে পারে I
  • সাধারণ হারে (ও আর ) প্রস্তাব গ্রহণ : এই রেটিং সূচিত করে যে সাধারণ বা স্বাভাবিক মানের জীবনে প্রয়োজনীয় প্রিমিয়ামের একই হারের প্রিমিয়ামে গৃহীত হয়েছে I যদি বীমাকৃত ব্যক্তির কোনো বিপরীত বৈশিষ্ট না থাকে যা তার ঝুঁকিকে প্রভাবিত করতে পারে , তখন সেই ঝুঁকিকে বিবেচনা করা হয় সাধারণ , স্ট্যান্ডার্ড , প্রথম শ্রেণী বা গড় জীবন হিসেবে I সেক্ষেত্রে প্রিমিয়াম ধার্য করা হয় ট্যাবুলার প্রিমিয়াম হিসেবে I
  • অতিরিক্ত প্রিমিয়ামে প্রস্তাব গ্রহণ : এটি বড় অংশের নিম্নমানের ঝুঁকি সঙ্গে মোকাবিলা করার সবচেয়ে সাধারণ উপায় Iএটিতে প্রিমিয়াম সারনিবদ্ধ হারের উপর একটি অতিরিক্ত মূল্য জড়িত I
  • ঝুঁকি নির্ধারণকারী সিদ্ধান্ত বহুমূত্র রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিকে বিমা সুরক্ষা দেওয়া যাবে কিনা I
  • বিমারাশির উপর বন্ধক (লিয়েন ) সহ প্রস্তাব গ্রহণ : বন্ধক হলো এক প্রকারের ধারণ , যেটি জীবনবীমা কোম্পানি দাবির ক্ষেত্রে পরিশোধিত সুবিধা অর্থে অনুশীলন করতে পারে I
  • উদাহরণ : বিমার জন্য প্রস্তাবিত জীবন টিবির মত রোগ ভোগ করছে এবং উদ্ধার করা হয়েছে সেক্ষেত্রে বন্ধক আরোপ করা যেতে পারে I বন্ধক সূচিত করে যে যদি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বিমাক্রিতের নির্দিষ্ট কারণে ( যেমন – টিবির পুন:আক্রমন ) মৃত্যু হয় , মৃত্যুর ক্ষেত্রে দাবিতে একটি হ্রাসপ্রাপ্ত অর্থ হয়ত পরিশোধযোগ্য I
  • উদাহরণ ২ : প্রস্তাব পত্র বন্ধকের সঙ্গে গৃহীত হয় পেশাগত বিপদের ক্ষেত্রে I ফর্মুলা গাড়ির দৌড় প্রতিযোগী যে ১৫ লাখ টাকার জীবন বিমা চায় সেক্ষেত্রে :
  • ঝুঁকিটি স্ট্যান্ডার্ড নয়
  • আশা করা হয় ঝুঁকিটি কিছু বছর পর কমে যাবে , ধরা যাক ৫ বছর I
  • যাই হোক এর জন্য প্রিমিয়াম বাড়বে না I
  • ঝুঁকি নির্ধারণকারী প্রস্তাবটি বন্ধকের সঙ্গে গ্রহণ করবে I সে ক্ষেত্রে , বিমারাশি বন্ধকের মেয়াদে কমে যায় I এর অর্থ যদি পলিসির ৫ বছরের মধ্যে যদি কিছু ঘটে ,তখন ৭ লাখ বিমারাশি প্রদান করা হবে এবং পুরো ১৫ লাখ বিমারাশি প্রদান করা হবে না I
  • সীমাবদ্ধ কারণ সহ প্রস্তাব গ্রহণ : নির্দিষ্ট প্রকারের বিপদের জন্য একটি নিয়ন্ত্রণমূলক ধারা প্রয়োগ করা যেতে পারে I যেগুলি কিছু বিশেষ পরিস্থিতিতে মৃত্যু হলে মৃত্যুকালীন সুবিধা সীমিত করে I
  • উদাহরণস্বরূপ , যদি বীমাকৃত বিবাহিত মহিলা হন , ঝুঁকি নিরীক্ষক আলাদা ভাবে বিচার করে I এটি ১৫ বছরের পলিসি, গর্ভাবস্থার মেয়াদের সময়ের সীমাবদ্ধতা থাকে এবং সেই ঝুঁকি বাদ দেওয়া হতে পারে I
  • বাতিল বা মুলতুবি : শেষ পর্যন্ত বিমা ঝুঁকি নির্ধারণকারী বিমা প্রস্তাব গ্রহণ বা বাতিল হওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন I এটি ঘটতে পারে যখন নির্দিষ্ট স্বাস্থ্য / অন্যান্য বৈশিষ্ট্য আছে যেগুলি এত প্রতিকুল হয় যে তারা যথেষ্ট ঝুঁকি ঘটনা বড় তৈরী করে I
  • উদাহরণ : একজন ব্যক্তি যিনি ক্যান্সারে ভুগছেন এবং উপশমের সামান্য সুযোগ আছে তিনি প্রত্যাখ্যান প্রার্থী হতে পারেন I
  • স্বাস্থ্য-পরীক্ষা ব্যতীত ঝুঁকি নির্ধারণ
  • স্বাস্থ্য-পরীক্ষা ব্যতীত ঝুঁকি নির্ধারণের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য পরীক্ষায় শুধুমাত্র একটি ছোট অনুপাতের ক্ষেত্রে ( বলা যায় এক দশমাংশ ) প্রতিকুল বৈশিষ্ট সন্ধানের আনা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ I বাকিটা প্রস্তাবনায় দেওয়া উত্তর বা প্রস্তাবকের রেকর্ড এবং অন্যান্য নথি থেকে পাওয়া যায় I
  • স্বাস্থ্য-পরীক্ষা ব্যতীত ঝুঁকি নির্ধারণ সাধারণত নিম্নলিখিত বিষয়গুলির উপর সীমাবদ্ধ :
    • বয়স
    • বিমারাশি
    • প্রকল্প
    • কাজের প্রকৃতি
  • স্বাস্থ্য-পরীক্ষা ব্যতীত ঝুঁকি নির্ধারণের শর্ত :স্বাস্থ্য-পরীক্ষা ব্যতীত ঝুঁকি নির্ধারণের কিছু শর্ত বিশ্লেষণ করা যাক
    • শুধুমাত্র নির্দিষ্ট শ্রেনীর মহিলা , যেমন কর্মরত মহিলা , হয়ত যোগ্য I
    • বিমারাশির উপর উর্ধসীমা আরোপ করা যেতে পারে I উদাহরণস্বরূপ , ৫ লাখের বেশি বিমারাশির ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা প্রয়োজনীয় I
    • প্রবেশের সময় বয়স আরোপিত হতে পারে – যেমন , কেউ ৪০ উর্দ্ধ বা ৪৫ বছর বয়স্ক , সেক্ষেত্রে স্বাস্থ্য পরীক্ষা আবশ্যক I
    • নির্দিষ্ট বিমা পরিকল্পনায় সীমাবদ্ধতা আরোপিত হতে পারে – যেমন মেয়াদী বিমা স্বাস্থ্য পরীক্ষা ব্যতীত প্রকারে নাও আসতে পারে I
    • বিমার সর্বোচ্চ শর্ত ২০ থেকে ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত সীমাবদ্ধ I
    • স্বাস্থ্য-পরীক্ষা ব্যতীত বিমা নির্দিষ্ট শ্রেনীর মানুষের ক্ষেত্রে অনুমোদিত , উদাহরণ স্বরূপ , স্বাস্থ্য ব্যতীত বিশেষ প্রদান করা হয় তথাকথিত সংস্থার কর্মচারীদের ,- এক বছর কর্মরত I এই কম্পানিগুলিতে ছুটির সঠিক রেকর্ড থাকে এবং পর্যয়্বৃত্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষণও থাকতে পারে যার জন্য কর্মচারীর স্বাস্থ্য অবস্থা সহজেই যাচাই করা যেতে পারে I
  • মহিলাদের ঝুঁকি নির্ধারণ : মহিলাদের জন্য ঝুঁকি নির্ধারণের নিয়ম পুরুষদের ঝুঁকি নির্ধারণের থেকে ভিন্ন I
  • মহিলাদের প্রস্তাব একটি বিশেষ ধারায় গ্রহণ করা হয় , যা পুরুষদের ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয় না I
  • এর কারণ হলো :
  • গর্ভাবস্থায় বেশি মৃত্যুহার , বিশেষত: গ্রামাঞ্চলে
  • সামাজিক শোষনের ফলে মৃত্যু
  • জালিয়াতির রেকর্ড
  • মননের বিপদ : নিচের বিষয়গুলি ব্যক্তির মানসিকতার উপর সন্দেহ বৃদ্ধি করে এবং মননের বিপদ বাড়িয়ে দেয় :
  • বিমাকৃতের বসবাসের জায়গা থেকে দুরের কোনো শাখায় যখন প্রস্তাব জমা করা হয় I
  • স্বাস্থ্য পরীক্ষা অন্য কোথাও করা হয় যখন একজনের বাড়ির কাছে যোগ্যতা সম্পন্ন স্বাস্থ্য পরীক্ষক থাকেন I
  • যখন কোনো বিমা যোগ্য স্বার্থ ছাড়াই অন্য আরেক জনের জীবনের জন্য প্রস্তাব করা হয় , বা মনোনিত বিমাকৃতের নিকটবর্তী নির্ভরশীল হয় না I
  • পেশাগত বিপদ তিনটি সূত্রের কোনো নির্গত উদ্ভুত হতে পারে :
  • দুর্ঘটনাজনিত বিপদ : উদ্ভুত হতে পারে কারণ নির্দিষ্ট ধরনের কাজ একজনকে দুর্ঘটনা ঝুঁকির সম্মুখীন করে I এই শ্রেণীতে অনেক প্রকার কাজ আছে – সার্কাস শিল্পী , ভারা শ্রমিক , ধ্বংস বিশেষজ্ঞ এবং ফিল্মে চমকদার I
  • স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিপদ : উদ্ভুত হয় যখন কাজের প্রকৃতিই স্বাস্থ্য হানির কারণ তৈরী করতে পারে I বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিপদ আছে I যেমন – রিক্সাচালকদের অসম্ভব শারীরিক ক্ষমতা এবং শ্বাস যন্ত্র জড়িত I
  • জীবনশৈলী এবং স্বভাব একজনের চরিত্রের অনেকটাই প্রতিভাত করে I যেমন : ধুমপান ও তামাকের ব্যবহার , মদ্যপান এবং ড্রাগ বা মাদক জাতীয় পদার্থের অপব্যবহার ,স্নায়বিক উত্তেজনা পশমিত করে এমন প্রদার্থ এবং অন্যান্য উত্তেজক প্রদার্থের ব্যবহার I
  • স্বাস্থ্য সম্পর্কিত ঝুঁকি নির্ধারণকারী : স্বাস্থ্য বিষয়গুলি ঝুঁকি নিরীক্ষকের সিদ্ধান্তকে প্রভাবিত করে :
  • পারিবারিক ইতিহাস : বংশগত রোগ , পরিবারের গড় আয়ু ইত্যাদি I
  • ব্যক্তিগত ইতিহাস : ব্যক্তিগত ইতিহাস বলতে বোঝায় বিমাকৃতের ভোগ করা মানব শরীরের বিভিন্ন যন্ত্রের হানি I
  • ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্য : শরীরের গঠন , শারীরিক অক্ষমতা ইত্যাদি I
  • মরণ রোগ হলো কার্ডিও ভাসকুলার রোগ যা হৃদ যন্ত্র ও রক্ত সংবহনকে প্রভাবিত করে , হৃদ রোগ , পাচন তন্ত্রের রোগ, অন্ত:সরাবি গ্রন্থির ক্ষয় ইত্যাদি I
  • বার্ধক্যকালীন রোগ : হৃদযন্ত্র বা কিডনি বিকল , বয়সের সাথে বৃদ্ধি পায় এবং বয়সকালে অনেক বেশি হয় I
Related Training Material  IC38 Hindi Chapter Paper 21