Bengali IC33 Chapterwise Notes 7

অধ্যায় ৭ – পেনশন ও বার্ষিক বৃত্তি

• পেনশনের মূল উদ্দেশ্য হলো বৃদ্ধ বয়েসে যখন তারা অবসর নিয়েছে বা কাজ করতে পারে না তখন ব্যক্তিকে একটি আয় প্রদান করা I এই মানুষজন সারা জীবনের উৎপাদনশীল বছরগুলিতে কর্মঠ ও উপার্জনক্ষম থাকবে I
• পেনশনকে জীবন বিমার অন্তপীঠ বলা যেতে পারে I তারা আর্থিক ফলাফলের, যা হতে পারে যখন কোনো ব্যক্তি অনেকদিন বেঁচে থাকে এবং এইভাবে একজনের আর্থিক সম্পদের বিকাশ ঘটে, বিরুদ্ধে নিরাপত্তা দেয় I
• পেনশনের মূল আপদকালীন সান্নিগ্ধ্য হলো অবসর কালীন আয়ের সুরক্ষা I
• বিমা প্রকল্প ও পেনশন প্রকল্পের পার্থক্য :
• জীবন বিমা প্রকল্প শীঘ্র বা অকালমৃত্যুর আর্থিক ফলাফলের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা দেয় I পেনশন প্রকল্প আর্থিক ফলাফলের, যা হতে পারে যখন কোনো ব্যক্তি অনেকদিন বেঁচে থাকে এবং এইভাবে একজনের আর্থিক সম্পদের বিকাশ ঘটে, বিরুদ্ধে নিরাপত্তা দেয় I
• জীবন বিমায় মূল আপদকালীন নিরাপত্তা হলো যা মরনশীলতা I পেনশনে, এটি হলো অবসরের পরে অবিচ্ছেদ্য আয় I
• জীবন বিমায়, ধারাবাহিক একটি প্রিমিয়াম দেওয়ার ফলে একটি মূলধন রাশি তৈরী হয় যাকে বলে আশ্বাসিত মূল্য I পেনশনের ক্ষেত্রে, একটি মূলধন অংশ, যাকে বলা যেতে পারে কর্পাস যা আয়ের নিয়মিত প্রদানের ধারার মাধ্যমে অংশিক বা সামগ্রিক প্রদান করা হয় I
• পেনশনের প্রকারভেদ
• সরকারী পেনশন রাষ্ট্র দিয়ে থাকে I এটা রাষ্ট্রের দায়িত্ব যে প্রত্যেক নাগরিক যাতে অবসরের পরও নুন্যতম আয় পেতে পারেন I বাধ্যতামূলক সদস্যদের মাধ্যমে প্রকল্পগুলি সরকার পরিচালনা করে I এগুলি সুনির্দিষ্ট ভাবে ‘আপনি যেমন যাবেন সে রকম দিন’ (পি এ ওয়াই জি ) ভিত্তিতে অর্থ যোগানো হয় I
• পেশাগত পেনশন নিয়োগকারীরা তাদের কর্মচারীদের সুবিধার জন্য গঠন করেন I
• ব্যক্তিগত পেনশন সেই প্রকল্প যা বৃদ্ধ বয়েসের আয় প্রদানের জন্য বানানো হয় I জীবন বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মত বাজার প্রদানকারীরা এর নকশা করে I
• ব্যক্তিগত পেনশন বার্ষিক বৃত্তির চুক্তি আকারে প্রস্তাব ও কেনা হয় I এটি বিমা কোম্পানি বা অন্য পেনশন প্রদানকারীর সাথে পেনশন গ্রহীতার মধ্যে চুক্তি I পেনশন প্রদানকারী এই অবদানগুলি পুল করেন ও বিনিয়োগ করেন, যার মূলধন ও বিনিয়োগের আয় থেকে তৈরী হয় কর্পাস I
• বার্ষিক বৃত্তি হলো এক ব্যক্তিকে যাকে বলা হয় বার্ষিক বৃত্তি প্রাপ্ত, বার্ষিক বৃত্তি প্রদান কারীর দ্বারা একগুচ্ছ নিয়মিত প্রদান I
• বার্ষিক বৃত্তিকে প্রায় জীবন বিমার বিপরীত হিসেবে বর্ণনা করা যেতে পারে I একটি জীবন বিমা চুক্তিতে, বিমাকৃতের মৃত্যু হলে বিমা প্রদেত্তা টাকা দেয় I কিন্তু বার্ষিক বৃত্তিতে, সাধারণত বার্ষিক বৃত্তি প্রাপ্ত ব্যক্তির মৃত্যু হলে বার্ষিক বৃত্তি বন্ধ হয়ে যায় I
• যতদিন বিমা প্রদেত্তা বার্ষিক বৃত্তি প্রদান করে সেই মেয়াদকালকে বলা হয় লিকুইডেশন পিরিয়ড I
• বার্ষিক বৃত্তির পরিমান নির্ভর করে আসল টাকা, বিনিয়োগের মেয়াদ, প্রদানের হার ও বার্ষিক বৃত্তি প্রদানের সময়কালের ওপর I
• সাধারণ বার্ষিক বৃত্তি দেওয়া হয় বা পাওয়া যায় প্রত্যেক মেয়াদের শেষে I
• জীবন বার্ষিক বৃত্তি : বার্ষিক বৃত্তি প্রাপ্ত ব্যক্তি আজীবন মেয়াদ এই সুবিধা পাবেন I
• শুদ্ধ জীবন বার্ষিক বৃত্তি : বার্ষিক বৃত্তি প্রাপ্ত ব্যক্তির মৃত্যুর পর এই সুবিধা বন্ধ হয়ে যাবে I
• নিশ্চিত বার্ষিক বৃত্তি : মেয়াদী প্রদান বার্ষিক বৃত্তি প্রাপ্ত ব্যক্তির জীবনের সাথে জড়িত নয় I এই প্রদান একটি বর্ণিত মেয়াদকাল পর্যন্ত প্রদান করা হবে তা ওই ব্যক্তি বেঁচে থাক বা মারা যাক I
• স্থায়ী সুবিধার বার্ষিক বৃত্তি :বিমা প্রদেত্তা মাসিক বৃত্তি টাকার পরিমানের নিশ্চয়তা দেয় প্রত্যেক টাকার জন্য যা বার্ষিক বৃত্তি কেনার সময় প্রযুক্ত হয় I
• পরিবর্তনশীল বার্ষিক বৃত্তি : বার্ষিক বৃত্তি প্রাপ্ত ব্যক্তির নাম জমা হওয়া টাকার মূল্য ও মাসিক সুবিধা প্রাপ্তি উঠানামা করে যে তহবিলে বিনিয়োগ হয়েছে তার খাতের কর্মক্ষমতার উপর I
• বার্ষিক বৃত্তি হতে পারে তাৎক্ষণিক বা বিলম্বিত বার্ষিক বৃত্তি I
• এককালীন কিস্তিতে কেনার সাথে সাথেই তাৎক্ষণিক বার্ষিক বৃত্তি শুরু হয়ে যায় I বার্ষিক বৃত্তি শুরু হয় এক মাস, তিন মাস,ছ-মাস বা বছর শেষে পলিসির বৈশিষ্ট অনুযায়ী পলিসিগ্রাহক যেমন চায় I
• বিলম্বিত বার্ষিক বৃত্তি অগ্রিম হিসেবে দেওয়া হয় I বার্ষিক বৃত্তি ক্রয়মূল্য এককালীন জমা দেওয়া যায় বার্ষিক বৃত্তি শুরু হওয়ার আগে I আবার বিলম্বিত বার্ষিক বৃত্তি ক্রয় করা যেতে পারে একগুচ্ছ বছর ধরে কিস্তি হিসেবে বার্ষিক বৃত্তি শুরু হওয়ার আগে I
• নিয়মিত আয় প্রদানের সাথে যুক্ত থাকার পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিটি পেনশন হলো বার্ষিক বৃত্তি কিন্তু প্রতিটি বার্ষিক বৃত্তি পেনশন নয় I
• নিচের উদাহরণের সাহায্যে পরিবর্ত আয় ঝুঁকি বোঝা যাক :
• বছর ৪০ এর সন্তোষ প্রতি মাসে ৫০,০০০ টাকা বেতন পান I সেই অনুযায়ী প্রতি বছর তার ৫% হারে আয় ও ব্যয় বৃদ্ধির সম্ভবনা রয়েছে, উনি আশা করেন যে ৬০ বছর বয়েসে তার সর্বশেষ বেতন হবে ১,৩২,৬৬৫ টাকা (৫০,০০০ x (১.০৫)২০) I
• ৬০ বছর বয়েসে অবসরের পর যে পরিবর্ত আয় তার প্রয়োজন হবে সেটি তার ৪০ বছর বয়সের আয়ের তুলনায় আড়াই গুনের বেশি হতে হবে I সন্তোষ উদ্বিগ্ন এই চিন্তা করে যে এই পরিমানটির কাছাকাছি সঞ্চয়ে তিনি কতটা পৌছতে পারবেন কিনা I
• তিনি আশা করেন যে যদি তার কোম্পানিতে একটি পেশাগত পেনশনের প্রকল্প থাকত তবে তিনি তার সমস্যার অন্তত একটি অংশের সমাধান করতে পারতেন I
• উদাহরণ : ধরাযাক ব্যাঙ্কে একটি দশ লক্ষ টাকার মেয়াদী জমা রয়েছে, যা প্রতি বছর ১২% হারে সুদ দেয়, যার থেকে প্রতি মাসে ১০,০০০ টাকা মাসিক প্রদেয় হিসাবে পাওয়া যায় I কিসের ভিত্তিতে এটি পেনশন থেকে পৃথক, যখন পেনশন থেকে মেয়াদী পেমেন্ট পাওয়া যায় I